যেসব কারনে আপনি সফল ওয়েব ডেভেলপার হতে পারছেন না এবং যে কাজগুলো পরিহার করলে আপনি হয়ে উঠতে পারেন একজন সফল ওয়েব ডেভেলপার…

আসসালামু-আলাইকুম । আশা করি সবাই ভাল আছেন? আমি আলহামদুলিল্লাহ্‌ ভাল আছি । আমার আজকের আলোচনার বিষয় যেসব কারনে আপনি সফল ওয়েব ডেভেলপার হতে পারছেন না এবং যে কাজগুলো পরিহার করলে আপনি হয়ে উঠতে পারেন একজন সফল ওয়েব ডেভেলপার । যারা নতুন ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখছেন বা শিখতে চান তাঁরা অনেক সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন । আবার অনেকে সঠিক নির্দেশনা পাওয়ার অভাবে ব্যর্থ হচ্ছেন । এমনকি, অনেকে সঠিক নির্দেশনা পাওয়ার পরও ব্যর্থ হচ্ছেন পরিশ্রমের অভাবে । ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শেখা তেমন কোন কঠিন কাজ নয় আবার অনেক সহজ কাজও নয় । আপনি নিয়মিতভাবে, সঠিক নির্দেশনা মেনে কাজ করলে হয়ে উঠতে পারেন একজন সফল ওয়েব ডেভেলপার । চলুন এবার আমরা ধাপে ধাপে আলোচনা করি আজকের বিষয় যে কাজগুলো করার জন্য আপনি সফল ওয়েব ডেভেলপার হতে পারছেন না…

সঠিক নির্দেশনা

ওয়েব ডিজাইন অথবা ডেভেলপমেন্ট শেখার জন্য সঠিক নির্দেশনা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় । ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখতে হলে আপনাকে প্রথমেই জানতে হবে প্রথমে কি শিখবেন? অনেকেই একসাথে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর সব বিষয়বস্ত একসাথে শেখা শুরু করে দেন কিংবা শেখার ধারাবাহিকতা বজায় রাখেন না । কিন্তু, আসলে বিষয়টি এরকম নয় । ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শেখার সুন্দর একটি ধারাবাহিক নিয়ম রয়েছে । ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শেখার ধারাবাহিকতা জানার জন্য এই বইটি ডাউনলোড করতে পারেন অথবা বইটি সরাসরি ইন্টারনেট থেকে পড়তে পাড়েন এই লিংক থেকে । তাহলেই, আপনার ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শেখার সাধারণ সমস্যাসমূহ সমাধান হয়ে যাবে ।

পরিশ্রমের অভাব

আমরা ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখতে চাই, কিন্তু পরিশ্রম করতে রাজি নই । আপনি যা কিছুই শিখতে চান, আপনাকে পরিশ্রম করে শিখতে হবে । আর সঠিক নির্দেশনা পাওয়ার পর আপনি কতটা সফল হবেন তা নির্ভর করছে আপনার পরিশ্রমের উপর । এ পর্যন্ত যারা সফল হয়েছেন তাঁরা কেউ পরিশ্রম ছাড়া সফল হতে পাড়েননি । বিশ্বাস না হলে তাঁদের সাথে কথা বলে দেখুন । তাঁরা সকলেই কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে সফলতা অর্জন করেছে । চিন্তা করুন, আপনি মাসে ২০,০০০-৩০,০০০ বেতনের একটা চাকরি করার জন্য ১৫ বছর লেখাপড়া করতে রাজি আছেন কিন্ত মাসে ৫০,০০০-১,০০,০০০ টাকা বেতনের চাকরির জন্য ভাল করে ১৫ মাস পরিশ্রম করতে রাজি হচ্ছেন না । আমি এখানে একটা উদাহরণ দিলাম মাত্র । একজন ওয়েব ডেভেলপারের বেতন আরও বেশি হতে পারে । তবে, এখন টাকার চিন্তা আপনাদের মাথায় ঢুকানো আমার এই টিউনের উদ্দেশ্য নয় ।

অতিরিক্ত টিউটোরিয়াল সংগ্রহ

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কিংবা অন্য যেকোনো কাজ শেখার জন্য টিউটোরিয়াল নিঃসন্দেহে একটি অপরিহার্য বিষয় । তবে, প্রয়োজনের অতিরিক্ত টিউটোরিয়াল সংগ্রহ আপনার শেখার কাজে বাঁধা হয়ে দাঁড়াবে । ধরুন, আপনি এখন এইচটিএমএল এবং সিএসএস শিখতে চাচ্ছেন কিন্তু আপনার কম্পিউটারে এইচটিএমএল & সিএসএস এর প্রায় ১০-১২ টি বই আছে । এখানে, স্বাভাবিকভাবেই আপনি দ্বিধায় পড়বেন যে কোন বই থেকে শিখবেন? আবার অনেকে আছেন যারা ২০০-৫০০ জিবি হার্ডডিস্ক ভিডিও টিউটোরিয়াল দিয়ে হার্ডডিস্ক পূর্ণ করে রেখেছেন । তাই, আপনি কোন বিষয় শেখার জন্য ১-২ টি ভালমানের বই বাছাই করেন । এরপর, এসব বই থেকে প্রত্যেকটি বিষয় ভাল করে বুঝে অগ্রসর হোন ।

সৃজনশীলতার অভাব

বেশীরভাগ ওয়েব ডিজাইনার বিশেষ করে যারা নতুন শিখেছেন তাঁদের যে সমস্যাটি বেশি দেখা দেয় সেটি হচ্ছে সৃজনশীলতার অভাব । তাঁরা নতুন কিছু করতে চাই না । অর্থাৎ, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর যে বিষয়গুলো তাঁরা ভাল করে পারে, তাঁরা শুধু সেসব কাজের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকে । দেখা যায়, তাঁরা ওয়েবসাইট ডিজাইনের ক্ষেত্রে নতুন কিছু করতে পারে না । এজন্য, আপনাকে প্রতিদিন নতুন নতুন প্রোজেক্ট এ হাত দিতে হবে ।

কোডিং এ কপি-পেস্ট

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এ কোডিং করার সময় কপি-পেস্ট করা এ ব্যর্থতার একটি প্রধান কারন । শুধু মাত্র এইচটিএমএল & সিএসএস ছাড়া অন্যান্য সকল কোডিং এ কপি-পেস্ট বেশি দেখা যায় । আবার অনেকে এইচটিএমএল & সিএসএস –ও কপিপেস্ট করেন । এসব কাজ ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শেখার একটি প্রধান বাঁধা । আপনার উচিত হবে, প্রতিটি কোড নিজের হাত এ লিখা । আপনি কপি-পেস্ট ছাড়া ১০-১২ টি ওয়েবসাইট তৈরি করে দেখুন আপনি অনেক কিছুই শিখে ফেলবেন ।

প্র্যাকটিসের অভাব

যারা ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখছেন তাঁদের অনেকেই শুধু বই অথবা ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখে পড়ে আর তা প্র্যাকটিস করেন না । এভাবে, আপনি কখনো ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর বিষয়বস্ত ভালভাবে শিখতে পারবেন না । এভাবে, আপনার শুধু সামান্য ধারনা হবে তবে এটা দিয়ে আপনার তেমন কোন কাজ হবে না । এমনকি প্র্যাকটিস করা ছাড়া আপনি যদি মুখস্ত করে ফেলেন তবুও মনে হয় না তেমন কোন কাজে আসবে । অন্যদিকে প্র্যাকটিসের মাধ্যমে আপনি সহজেই শিখতে পারবেন । আমি যখন সিএসএস শিখছিলাম তখন আমার মনে হয়েছিলো সিএসএস এর চেয়ে কঠিন কিছুই নেই । কেননা, সিএসএস এ শত শত প্রোপার্টি, প্রায় প্রত্যেকটির আলাদা আলাদা ভ্যালু অর্থাৎ মান রয়েছে । তখন আমার মনে হয়েছিলো সিএসএস শেখা আমার পক্ষে অসম্ভব । এমনকি, আমি তখন একটা গ্রুপে পোস্ট করেছিলাম যে সিএসএস শেখা সম্ভব কি না? এরপর, প্র্যাকটিসের মাধ্যমে সহজেই শিখে ফেললাম । তাই, আপনি কয়েকদিন প্র্যাকটিস করুন, আশাকরি সহজেই শিখতে পারবেন ।

আপডেটেড না থাকা

আমরা সবাই বিশেষ করে যারা ওয়েব ডিজাইনার মুটামুটি এইচটিএমএল & সিএসএস শিখেছি । কিন্তু, আমরা কতজন HTML5 এবং CSS3 শিখেছি? আমরা কতজন পিএইচপির ভার্সন সম্পর্কে খোঁজ-খবর রাখি? এমন অনেকে আছেন যারা এসব বিষয়ের সাথে আপডেটেড না । এভাবে চলতে থাকলে আপনি কিভাবে সফল হবেন?

পরিশেষে, বলছি ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এ সঠিক নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করুন, সফল হবেন – ইনশাল্লাহ্‌ ।

আমি এখানে আরও কিছু  জিনিস বলতে পারবো । যাইহোক, আজ আর নয় । নির্দেশনা অনুসারে কাজ করে যান । কোন সমস্যা হলে ইন্টারনেট এ প্রচুর রিসোর্স আছে আপনার সমাধানের জন্য ।

আমাকে ফেইসবুক এ পেতে এখানে ক্লিক করুন ।

আপনার যদি কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে নির্দ্বিধায় করতে পারেন । যদি টিউটোরিয়ালটি পড়ে আপনাদের ভাল লাগে তাহলে কমেন্ট করতে ভুলবেন না । সবাই ভাল থাকুন । আল্লাহ্‌ হাফেজ ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *